Breaking News
Home / আইন ও আদালত / ফতুল্লায় মাদকসেবী ও বখাটেদের উৎপাত বৃদ্ধি

ফতুল্লায় মাদকসেবী ও বখাটেদের উৎপাত বৃদ্ধি

এ,আর,কুতুবে আলম, ফতুল্লা (নারায়ণগঞ্জ) সংবাদদাতা :
ফতুল্লার পাড়া মহল্লা ও তার অলিগলিতে চলছে মাদক সেবীদের আড্ডা ও বখাটেদের উৎপাতে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে পথচারী ও এলাকাবাসী। দেখার কেউ নাই।
এলাকাসূত্রে জানা যায়, ফতুল্লার লালপুর, সরকার বাড়ী সড়ক ও পৌষার পুকুর পাড় এলাকার প্রত্যেক বাড়ির অলিগলিতে এবং ফিডা রাস্তায় বখাটেদের ও মাদক সেবীর উৎপাত বৃদ্ধি পাচ্ছে। এর পেছনে সেল্টার দিচ্ছে স্থানীয় ছিচকে নেতা ও পুলিশের সোর্সরা। স্থানীয়রা ও পথচারীরা জানান, ফতুল্লার লালপুর সরকার বাড়ি সড়ক মোস্তাফিজুর রহমানের বাড়ি,সবুর খানের বাড়ির পেছনে কবির চৌধুরীর পাড়ির চিপা গলি ,সরকার বাড়ির গলিতে দেখা যায় সকাল সন্ধ্যা ও দুপুরে বখাটেদের আড্ডা ও মাদক সেবীদের ভীড়। এরা রাস্তায় দাঁড়িয়ে গার্মেন্টস কর্মী ও স্কুল কলেজ মাদ্রাসা পড়ুয়া শিক্ষার্থীদেরকে উৎক্ত্যাক্ত করে বলে এলাকাবাসী জানান। এদের অত্যাচারে পথচারীদের চলাছলে ভীষণ বিঘ্ন ঘটে। গামের্ন্টসকর্মী শামসু জানায় আমি বিসিক এলাকায় গামেন্টর্সে কাজ করি। তাই সকালে যাই রাতে আসি। যখন আসি তখন সরকার বাড়ীর সামনের গলিতে দেখি বখাদের আড্ডা ও মাদক সেবন করে । এতে কেহ কোন প্রকার কর্ণ পাত করছেন না। দেখা যায় এদের কারো মা পিঠা বিক্রি করে কারো মা মানুষের বাড়ি ঝিয়ের কাজ করে আবার কারো বাবা গাড়ীর হেল্পার কারো মা সুদের ব্যবসা করে। এদের ঘরের বখাটে ছেলেরা এই রাস্তায় আড্ডা দেয় এবং মাদক সেবন করে। এযেন কারো কোন মাথা ব্যথা নেই। মাঝে মাঝে দেখা যায় গামের্ন্টস কর্মী ছেলেমেয়েদের আটক করে তারা ফিটিং খায়। এভাবে চলছে প্রতিনিয়ত এই রাস্তাগুলোতে। কবির চৌধুরী জানান, তার বাড়ির পিচাগলিতে মাদক সেবন ও মোবাইলে জুয়া খেলে বখাটে ছেলেরা তাদের বয়স ১৫ থেকে ১৮ বছর। এরা আমার ভাড়াটিয়াদের সাথে খারাপ আচারণ করে। তাই আমার বাড়ির প্রায় ৪/৫ টি রুম এখনও খালী আছে।
লালপুরের পৌষার পুকুরপাড় এলাকার ফিডার রাস্তাগুলোতে মাদক সেবী ও বখাটেদের আড্ডা। জালাল আহম্মেদ সড়ক লালপুরে বেশ কয়েকটি রাস্তায় বখাটেদের উৎপাত বৃদ্ধি পেয়েছে।
এই বখাটেদের সেল্টার দিচ্ছে একশ্রেনীর চিছকে নেতা ও ফতুল্লা থানা পুলিশের সোর্সরা। অনেক সময় দেখা যায় ফতুল্লা থানা পুলিশের পাবলিক গাড়ী চালকরাও ঐ বখাটেদের সাথে আড্ডা দেয়। ফলে সারাধণ মানুষ ও এলাকার মুরুব্বীরা তাদের কিছু বলতে সাহস পায়না। গত ২৭ ফেব্রুয়ারী সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় ফতুল্লা রিপোর্টার্স ক্লাবের যুগ্ম সম্পাদক এ.আর কুতুবে আলম সরকারবাড়ী সড়ক সবুর খানের বাড়ির পেছনে বখাটেদের আড্ডা দেখে প্রতিবাদ করেন। পরে বখাটেরা চলে যায়। এমন প্রতিবাদ রাজনীতিবিদ থেকে শুরু করে কেহ না করায় বখাটে ও মাদক সেবীরা এখন বেপরোয়া হয়ে উঠেছে।
এলাকাবাসী ও সচেতন মহলের দাবী ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ টহল জোরদার রাখলে এই বখাটেদের আড্ডা ও মাদকসেবীর উৎপাত হ্রাস পাবে। তাই ফতুল্লা থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আসলাম হোসেনর হস্তক্ষেপ কামনা করেন এলাকাবাসী।

Check Also

রাঙ্গাবালীতে করোনা ভাইরাস-জনসচেতনতায় লিফলেট বিতরণ

মাহামুদ হাসান, রাঙ্গাবালী (পটুয়াখালী)প্রতিনিধিঃ পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলায় করোনা-ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব প্রতিরোধে জনসচেতনতায় লিফলেট বিতরণ করা হয় …