Breaking News
Home / শিক্ষা / সরকারি মেডিকেলে ভর্তিতে প্রতি আসনে ১৬ জনের লড়াই

সরকারি মেডিকেলে ভর্তিতে প্রতি আসনে ১৬ জনের লড়াই

নিয়ামুর রশিদ শিহাব,
সরকারি ও বেসরকারি মেডিকেল কলেজগুলোতে ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষে এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষায় প্রতি আসনের বিপরীতে অংশ নেবেন ৬ জন শিক্ষার্থী। তবে শুধু সরকারি মেডিকেল কলেজের আসন সংখ্যা হিসেবে এ সংখ্যা ১৬ জন।
এবছর সরকারি মেডিকেল কলেজগুলোতে আসন সংখ্যা ৪ হাজার ৬৮ এবং সবমিলিয়ে মোট আসন সংখ্যা ১০ হাজার ৩০০টি। এর বিপরীতে ভর্তি পরীক্ষার জন্য আবেদন জমা পড়েছে ৬৫ হাজার ৯১৯টি।
স্বাস্থ্য অধিদফতরের চিকিৎসা শিক্ষা ও স্বাস্থ্য জনশক্তি উন্নয়ন শাখা সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।
পূর্ব ঘোষণা অনুসারে, সারাদেশের ১৯টি কেন্দ্রে আগামী ৫ অক্টোবর একযোগে সকাল ১০টা থেকে ১১টা পর্যন্ত এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। ভর্তি পরীক্ষা গ্রহণের জন্য প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে।
সংশ্লিষ্টদের মতে, রাজধানীসহ সারাদেশে সরকারি পর্যায়ে মেডিকেল কলেজ ও আসন সংখ্যা বাড়লেও কমেছে এমবিবিএস কোর্সে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীর সংখ্যা।
গত বছর সরকারি ৩১টি মেডিকেল কলেজের ৩ হাজার ৩১৮টি আসনে ভর্তির জন্য আবেদন করেন ৮২ হাজার ৭৮৮ শিক্ষার্থী। এ বছর গত ১৮ সেপ্টেম্বর ছিল এমবিবিএস প্রথম বর্ষে ভর্তির আবেদনের শেষ দিন। ভর্তির সময়সীমা শেষ হওয়ার পর সরকারি ৪ হাজার ৬৮ আসনের বিপরিতে আবেদনপত্র জামা পড়েছে মাত্র ৬৫ হাজার ৯১৯টি। গতবারের তুলনায় আবেদনকারীর সংখ্যা ১৬ হাজার ৮৭৫ জন কম।
এ প্রসঙ্গে স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিচালক (চিকিৎসা শিক্ষা ও স্বাস্থ্য জনশক্তি উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা. আব্দুর রশীদ যুগান্তরকে বলেন, ‘গত ১৮ সেপ্টেম্বর এমবিবিএস প্রথম বর্ষে ভর্তির আবেদনের সময়সীমা শেষ হয়েছে। এবছর সরকারি ও বেসকারি মেডিকেল কলেজে আসন সংখ্যা মোট ১০ হাজার ৩০০টি। এসব আসনে ভর্তির জন্য আবেদনপত্র জমা পড়েছে ৬৫ হাজার ৯১৯টি।
আবেদন কম হওয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এবছর উচ্চ মাধ্যমিকে জিপিএ-৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীর সংখ্যা গত বছরের তুলনায় কম ছিল। তাছাড়া দ্বিতীয়বার ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারীদের ক্ষেত্রে ৫ নম্বর বাদ দেয়ায় তারাও আবেদন কম করেছে। তবে এই সংখ্যা স্বাভাবিক বলেই মনে করেন তিনি।
পরীক্ষার প্রস্তুতি সম্পর্কে ডা. রশীদ বলেন, ইতিমধ্যে ভর্তিপরীক্ষা সংক্রান্ত বেশ কয়েকটি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। আইন-শৃংখলা বাহিনীসহ সহযোগী সব প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে কথা হয়েছে। তারা তাদের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করছে।
অধ্যাপক ডা. আবদুর রশীদ বলেন, অপেক্ষাকৃত কম খরচে অধিক সংখ্যক মেধাবী শিক্ষার্থীকে সরকারি মেডিকেল কলেজে পড়ার সুযোগ করে দিতে নতুন পাঁচ সরকারি মেডিকেল কলেজ প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। এ ছাড়া পুরোনো মেডিকেল কলেজে ৫০০ আসন বাড়ানো হয়েছে।
অধিদফতর সূত্র জানায়, পুরোনো ৮টি সরকারি মেডিকেল যথাক্রমে ঢাকা, সলিমুল্লাহ, চট্টগ্রাম, রাজশাহী, রংপুর, ময়মনসিংহ ও বরিশালে আসন বাড়ানোর ফলে এবার ২২০ জন করে শিক্ষার্থীর ভর্তির সুযোগ থাকবে।
এছাড়া আসন বাড়ায় চলতি বছর শহীদ সোহরাওয়ার্দীতে ১৭৫ জন, খুলনা, বগুড়া, কুমিল্লা, ফরিদপুর ও দিনাজপুর মেডিকেল কলেজে ১৬০ জন করে, পাবনা, কক্সবাজার, নোয়াখালী ও যশোরে ৭০ জন করে, সাতক্ষীরা, কিশোরগঞ্জ, কুষ্টিয়া, গোপালগঞ্জ, গাজীপুর, টাঙ্গাইল, জামালপুর, মানিকগঞ্জ, সিরাজগঞ্জ ও মুগদা মেডিকেল কলেজে ৬৫ জন করে ভর্তির সুযোগ পাবে।
তবে হবিগঞ্জ, রাঙামাটি ও পটুয়াখালীতে আসন সংখ্যা বাড়েনি। এ তিনটি মেডিকেল কলেজে আগের মতো ৫১ জন করে শিক্ষার্থী ভর্তি হতে পারবেন।

Check Also

রাঙ্গাবালীতে করোনা ভাইরাস-জনসচেতনতায় লিফলেট বিতরণ

মাহামুদ হাসান, রাঙ্গাবালী (পটুয়াখালী)প্রতিনিধিঃ পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলায় করোনা-ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব প্রতিরোধে জনসচেতনতায় লিফলেট বিতরণ করা হয় …