Breaking News
Home / সারাদেশ / বরিশাল / পটুয়াখালী / দশমিনা বুড়াগৌরাঙ্গ নদীর তীব্র ভাঙ্গনে উওর রনগোপালদী এলাকাটি বিলীন এর পথে

দশমিনা বুড়াগৌরাঙ্গ নদীর তীব্র ভাঙ্গনে উওর রনগোপালদী এলাকাটি বিলীন এর পথে

মোঃ আরিফুর রহমান ঝন্টু,দশমিনা (পটুয়াখালী) সংবাদদাতা
পটুয়াখালীর দশমিনা উপজেলার ০১ নং রনগোপালদী ইউনিয়নের অন্তর্গত পটুয়াখালীর রনগোপালদী গ্রামের বুড়ির কান্দা গামী বুড়াগৌরাঙ্গ নদীর উত্তর তীর ঘেষে গড়ে ওঠা বুড়ির কান্দা বাজার। বাজারটি দশমিনা উপজেলা সদর থেকে রনগোপালদী ঘুরে প্রায় ২০ কিঃমিঃ উওর পশ্চিমে, পটুয়াখালী জেলা সদর থেকে প্রায় ৪৫কিঃ মিঃ দক্ষিণ দিকে অবস্থিত। এলাকাটি এক কথায় সকল প্রকার প্রশাসনিক নিয়ন্ত্রনহীন। এই ডিজিটাল যুগেও উন্নয়নের তেমন কোন ছোঁয়া লাগেনী ঐ এলাকাটিতে। এলাকাটি ব্যাক্তি মালিকানাধীন হলেও, এখানে আগে বড়সরো একটি বাজার বসতো, কিন্তু এখন কোন বাজার নেই ধীরেধীরে বাজারটি বন্ধহয়ে গেছে। এ ব্যাপারে তশির জোমাদ্দার এর কাছে মুঠো ফোনে যানতে চাইলে তিনি বলেন এ বাজারটিতে একসময় বিক্রি হত এলাকাবাসীর উৎপাদিত নিত্যপ্রয়োজনীয় পন্য সামগ্রী। যা বাজারটি গড়ে ওঠার পূর্বে প্রায় অনেক রাস্তা পায়ে হেটে অনেক পথ পাড়ি দিয়ে যেতে হত সুদুর দূরদূরান্ত থেকে আসা বাজারের উদেশ্যে, এলাকার ঐতিয্যবাহী জোমাদ্দার বাড়ি ও মৃধা বাড়ি ফ্যামিলি এবং এলাকার ছোট বড় বেশ কয়েকজন জমি দাতাদের নিয়ে বুড়ির কান্দা এলাকা নামে এই বাজার ও এলাকাটি বেশ পরিচিত হয়। সে থেকে এ বাজারটিকে ঘিরে মাত্র কয়েক গজ ব্যাবধানে রয়েছে রনগোপালদী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও একটি ১৯ নং রনগোপালদী সঃ প্রাঃ বিদ্যালয় । প্রতিবেদককে আরো বলেন,জরুরী ভিত্তিতে এ নদীর ফোল্ডারটি রক্ষা করা না হলে,বাজারের ব্যাবসায়ীরা যেমন পথে বসবে, তেমনি ফোল্ডারটি রক্ষা করা না হলে একটি মসজিত ও দুটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সহ জোয়ারের লোনা পানি ঢুকে এলাকার হাজার হাজার একর জমির ফসল হানী ঘটবে।

Check Also

রাঙ্গাবালীতে করোনা ভাইরাস-জনসচেতনতায় লিফলেট বিতরণ

মাহামুদ হাসান, রাঙ্গাবালী (পটুয়াখালী)প্রতিনিধিঃ পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলায় করোনা-ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব প্রতিরোধে জনসচেতনতায় লিফলেট বিতরণ করা হয় …