Breaking News
Home / আইন ও আদালত / ফতুল্লায় ধর্ষন ও হত্যা মামলার আসামী গ্রেপ্তার

ফতুল্লায় ধর্ষন ও হত্যা মামলার আসামী গ্রেপ্তার

এ,আর,কুতুবে আলম, ফতুল্লা (নারায়ণগঞ্জ) সংবাদদাতা :
ফতুল্লার কাশীপুর বাংলাবাজার এলাকার স্কুল ছাত্রী ধর্ষন শেষে হত্যা মামলার পলাতক আসামী দুবাই থেকে পুলিশ হেডকোয়ার্টারের এন.সি বি শাখার মাধ্যমে গ্রেপ্তার করে বাংলাদেশে আনা হয়েছে।
পুলিশ ও এলাকা সূত্রে জানাযায়, ফতুল্লার কাশীপুর বাংলা বাজার এলাকার আ.সাত্তার মিয়ার ছেলে মো. শাহীন বেপারী (৪০)। তার এক ছেলে এক মেয়ে। স্ত্রী সন্তান নিয়ে তার একটি ছোট হাসি খুশি পরিবার। তার মেয়ে মোনালিসা (১২)। সে উজির আলী স্কুলে ৬ষ্ঠ শ্রেনিতে পড়া লেখা করতো। গত ২ ফেব্রুয়ারী বিকেলে মোনালিসার‘ মা ও বাবা দুজনেই আত্মীয়ের বাড়িতে যায়। সে একা বাসায় থাকে । এ সুযোগে লম্পট ঘাতক সাঈদ তাদের বাসায় ঢুকে মোনালিসার ইচ্ছের বিরুদ্ধে জোর পূর্বক ধর্ষন করেছে। ধর্ষন শেষে নরপশু সাঈদ (৩৫) মোনালিসাকে গলাটিপে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে। এরপর সে অভিনব কায়দায় তার গলায় ফাঁস লাগিয়ে ফ্যানের সাথে ঝুলিয়ে সে সু কৌশলে পালিয়ে যায়। এরপর মোনালিসার মা বাবা আত্মীয় স্বজন এবং আশে পাশের লোকজন ছুটে আসে। ঘটনা স্থলে পুলিশ গিয়ে লাশটি উদ্ধার করেছে। প্রাথমিক সুরাত হাল রির্পোট তৈরী করে লাশটি ময়না দতন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করেছে। কর্তব্যরত চিকিৎসকের রিপোর্টে জানায় তাকে ধর্ষণ শেষে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে। পরে নিহত মোনালিসার বাবা শাহীন বাদী হয়ে ফতুল্লা মডেল থানায় সাঈদের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলা নং ৭(২)১৮। এদিকে, ঘাতক সাঈদ ও তার বাবা ইকবাল হোসেনসহ পরিবারের সদস্যরা তাদের বাসায় তালাবদ্ধ করে পালিয়েছে। পুলিশ কল ট্রাকিং ও সঠিক সোর্স ব্যবহার করে জানতে পারে সাঈদ দুবাই চলে গেছে। তাকে ঢাকা পুলিশ হেডকোয়ার্টারের এন.সি.বি শাখার মাধ্যমে গতকাল (২৩ সেপ্টেম্বর) সকালে বাংলাদেশে আনে। এরপর তাকে ফতুল্লা মডেল থানায় প্রেরণ করেছে। তবে নিহত মোনালিসার পরিবারের সদস্যদের জোড়ালো ভূমিকা ছিলো এই ঘাতক সাঈদ কে বিদেশ থেকে বাংলাদেশে ফেরত আনতে।

Check Also

রাঙ্গাবালীতে করোনা ভাইরাস-জনসচেতনতায় লিফলেট বিতরণ

মাহামুদ হাসান, রাঙ্গাবালী (পটুয়াখালী)প্রতিনিধিঃ পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলায় করোনা-ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব প্রতিরোধে জনসচেতনতায় লিফলেট বিতরণ করা হয় …