Breaking News
Home / সারাদেশ / খুলনা / সাতক্ষীরা / জমি অধিগ্রহণ জটিলতায় আটকে গেছে তালায় ফায়ার সার্ভিস স্টেশন নির্মান

জমি অধিগ্রহণ জটিলতায় আটকে গেছে তালায় ফায়ার সার্ভিস স্টেশন নির্মান

এসএম হাসান আলী বাচ্চু,তালা (সাতক্ষীরা) সংবাদদাতা:
জমি অধিগ্রহণ জটিলতায় আটকে আছে তালায় ফায়ার সার্ভিস স্টেশন স্থাপন। উপজেলার সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ’র প্রয়োজনীয় সহায়তার অভাবে তালায় অদ্যবদী নির্মাণ করা সম্ভব হয়নি ফায়ার সার্ভিস স্টেশন।
সূত্রমতে, প্রধানমন্ত্রীর অগ্রাধিকার ভিত্তিক প্রকল্পের অধিনে সাতক্ষীরা জেলার তালা উপজেলায় একটি ফায়ার সার্ভিস স্টেশন নির্মাণের কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়। স্থানীয় (তালা-কলারোয়া) সংসদ সদস্য, তালা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা ফায়ার সার্ভিস স্টেশন এর উপ-পরিচালক সম্মিলিত ভাবে তালার শহীদ মুক্তিযোদ্ধা মহাবিদ্যালয় এলাকার পেট্রোল পাম্প এর পার্শ্বে একটি জমি নির্ধারণ করেন। কিন্তু জমি মালিক এর পরিবারের সদস্যকে উক্ত স্টেশনে চাকরি প্রদানের শর্ত, জমির উপর উচ্চ ভোল্টের বৈদ্যুতিক তার থাকা সহ জমির আয়তন ও সীমানা সংক্রান্ত জটিলতার কারনে দীর্ঘদিনেও সেখানে ফায়ার সার্ভিস স্টেশন নির্মান সম্ভব হয়নি। একারনে তালা থানার পাশে অবস্থিত সরকারি জমিতে ফায়ার সার্ভিস স্টেশন নির্মান করার জন্য একটি দায়িত্বশীল মহল উদ্যোগ নিলেও উপজেলা প্রশাসনের যথাযথ সহায়তার অভাবে সেখানেও স্টেশন নির্মান সম্ভব হচ্ছেনা। এই দুটি স্থান বাদে অন্য কোথাও প্রয়োজনীয় ১বিঘা জমি পাওয়ার সম্ভাবনা না থাকায় অদ্যবদী তালায় ফায়ার সার্ভিস স্টেশন নির্মান সম্ভব হয়নি। এরফলে বছরের পর বছর ধরে জনগুরুত্বপূর্ন প্রতিষ্ঠান ফায়ার সার্ভিস স্টেশন এর সেবা পাওয়া থেকে তালা সহ নিকটবর্তী পাইকগাছা ও কয়রা উপজেলার মানুষ বঞ্চিত হচ্ছে।
তালা উপজেলা একাধিক ইউনিয়ন সহ খুলনা জেলার পাইকগাছা এবং কয়রা উপজেলার কোথাও অগ্নিকান্ড হলে খুলনার ডুমুরিয়া অথবা সাতক্ষীরা থেকে ফায়ার সার্ভিস কর্মীদের ঘটনাস্থলে আসতে হয়। এতে অনেক ক্ষেত্রে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা ঘটনাস্থলে আসার আগেই সব পুড়ে ছাই হয়ে যায়। তালার রেন্ট-এ-কার ব্যবসায়ী সৌমেন মজুমদার বলেন, তালায় একটি ফায়ার সার্ভিস স্টেশন নির্মান করা আমাদের প্রাণের দাবি। সরকারি বা ব্যক্তিগত জমি যায় হোক, জনগনের স্বার্থে আমাদের এ কাজ অতি দ্রুত সম্পন্ন করতে হবে।
এ ব্যাপারে তালা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সনৎ কুমার বলেন, তালা অনেক বড় একটা উপজেলা হওয়ার সত্ত্বেও এখানে কোন ফয়ার সার্ভিস স্টেশন নেই। উপজেলাটিতে অনেক বহুতল ভবন, এনজিও, শিল্প কারখানা ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। কোন দুর্ঘটনা ঘটলে সাতক্ষীরা সদর অথবা খুলনা থেকে ফায়ার সার্ভিস ডাকতে হয় এতে অনেক সময় লাগে। খেশরা, খলিলনগর, জালালপুর, খলিশখালী, ইসলামকাটী, তেঁতুলিয়া ইউনিয়নের অনেক দুর্গম এলাকায় ফায়ার সার্ভিস পৌছতে ঘন্টার পর ঘন্টা সময় লাগে। এজন্য ফায়ার সার্ভিস স্টেশন নির্মাণের জন্য সিদ্ধান্ত গ্রহণ পূর্বক জমি অধিগ্রহনের কাজ করেছিলাম। তালার শিবপুর পেট্রোল পাম্প এর পার্শে একটি জমির মালিকের সাথে কথা বলে এমপি মহাদয়ের মাধ্যমে সেটা নির্ধারণ করা হয়েছিল। জমির মালিকও সরকারি বিধি অনুযায়ি জমি দিতে রাজি ছিলেন। কিন্তু সেই সময়কার উপজেলা নির্বাহি অফিসার’র নেগলেজেন্সির কারনে সেটা সম্ভব হয়নি। কিন্তু বর্তমানে আবারও সেই জমিতে ফায়ার সার্ভিস স্টেশন নির্মানের জন্য প্রক্রিয়া শুরু করা হয়েছে।
সাতক্ষীরা ফায়ার স্টেশনের উপপরিচালক নজরুল ইসলাম জানান, আমরা তালাতে গিয়ে এমপির সহায়তায় ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের জন্য একটি জমি ফাইনাল করলেও সেটা লোকাল প্রশাসনের সহায়তা না পাওয়ার কারণে নির্মাণ করা সম্ভব হচ্ছেনা। এটি নির্মানের জন্য ৩৩ শতক বা ১ বিঘা জমির প্রয়োজন। শুধু জমি অধিগ্রহনে জটিলতা থাকার কারণে তালা ফায়ার স্টেশনটি নির্মাণ করা সম্ভব হচ্ছে না।

Check Also

রাঙ্গাবালীতে করোনা ভাইরাস-জনসচেতনতায় লিফলেট বিতরণ

মাহামুদ হাসান, রাঙ্গাবালী (পটুয়াখালী)প্রতিনিধিঃ পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলায় করোনা-ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব প্রতিরোধে জনসচেতনতায় লিফলেট বিতরণ করা হয় …