Breaking News
Home / আইন ও আদালত / পটুয়াখালীতে মামলা দিয়ে সংখ্যালঘু নির্যাতন

পটুয়াখালীতে মামলা দিয়ে সংখ্যালঘু নির্যাতন

মো: নাসির উদ্দিন, গলাচিপা (পটুয়াখালী) সংবাদদাতা
পটুয়াখালীর গলাচিপার সুতাবাড়িয়া এলাকার বাসু চন্দ্রর ছেলে বিকাশ চন্দ্র(২২)কে মিথ্যা ধর্ষনের মামালা দিয়ে নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। সুমাইয়া আক্তার(১৯)নামে এক যুবুতি বিজ্ঞ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল নং ৪ ঢাকা শহিদ মোল্লা (৩৫) কে ১ নং আসামী ও বিকাশ চন্দ্রকে ২ নং আসামী করে একটি ধর্ষন মামলা দায়ের করেন সুমাইয়া নামে এক যুবুতি। মামলার বাদিনী সুমাইয়া অভিযোগ করেন আমি অষ্ঠম শ্রেনী পাশ করা একজন যুবুতি নারী আমার গ্রামের বাড়ী পটুয়াখালী বাউফল উপজেলার ভোগা বন্দর পিতা আব্দুর রশিদ মোল্লা বর্তমান ঠিকানা বাড়ী নং ১২৪ রোড নং ৬ আদাবর থানা ঢাকা।১ নং আসামীর সাথে ২০১৭ সালে জানুয়ারি মাসে মোবাইলে ফেসবুকের মাধ্যমে পরিচয় হয় আসামীর দেশের বাড়ী পটুয়াখালী জেলার পার্শ্ববর্তী থানার চিকনিকান্দি ইউনিয়নের সুতাবাড়িয়া গ্রামের স্থায়ী বাসিন্দা। আসামী শহিদ মোল্লার ও সুমাইয়ার ফেচবুকে পরিচয়ের পর প্রেম ভালোবাসার অবৈধ সম্পর্ক গরে ওঠে তারপর শহীদকে ঢাকায় যেতেবলে শহিদ ঢাকা গিয়ে সুমাইয়ার সাথে ঢাকার সংসদ ভবনের লেকের ভুটওভার ব্রীজে সংলগ্ন পরিচয় মিলিয়ে দুজন একসাথ হয় এবং প্রস্তাব করেন আমার বন্ধুর বাসায় চলো ওখানে ওরা পরিবার সহ থাকেন। অতপর আসামী বাদীনি চন্দ্রিমা উদ্যানে ঘোরাঘুরির পর তারা বিকাশের বাসায় যায় ঘটনার দিন ১৮.৫.১৭ তারিখে সন্ধায় বিকাশের বাসায় গিয়ে উপস্থিত হয় বিকাশ দুজনকে বলেন আপনাদের ভাবি মার্কেটে গিয়েছে। আপনারা ড্রইং অপেক্ষা করেন আমি চা নাস্তা নিয়ে আসি তারপর পুনরায় বিকাশ চানাস্তা নিয়ে রুমে প্রবেশ করে তখোন ১ নং আসামী শহিদ ভিতর থেকে দরজা আটকে দেয়। তৎক্ষনাৎ বাদীনিকে বিয়ের প্রলভোন দেখিয়ে শারিরীক সম্পর্কের প্রস্তাব দেয়। তখোন ২ নং আসামী বলেন আপনাদের তো বিয়ে হবেই তাহলে সমস্যা কোথায় এই কথাবলে ২ নং আসামী বাদীনির ২ হাতচেপে ধরে এবং ১ নং আসামী জোড় করে খাটের উপড় ফেলে ধর্ষনের চেষ্টা করে।পরে বাদীনির চিৎকার শুনে স্বাক্ষীরা হাজির হয়ে বাদীনি কে উদ্ধার করে এবং ১৫.৫.১৭ তারিখে মোহাম্মদ পুর থানায় নারী শিশু দমন আইনে পিটিশন মামালা দায়ের করেন মামলা নং ১৫৫/২০১৭ এদিকে বিকাশের বাবা বাসুদেব জানান ড্রইং রুম দুরের কথা আমরা ঠিকমতো ঢাকা চিনিনা। আমিও আমার পরিবার গ্রামের বাড়ী ছাড়া আমরা কোথাও থাকিনা আদাবর বাসা নেওয়া দুরের কথা ঢাকাই ঠিকমতো চিনিনা ১৮ তারিখে আমার এক পোলার নামে মামলা একি মাসে ২৪ তারিখে আরেক পোলা প্রকাশ চন্দ্রকে রুমা নামে আরেক মহিলা যৌতুক মামলার আসামী করে। আমরা হিন্দু আর অপর দুই বাদীনি মুসলমান আমরা তাদেরকে জীবনে দেখিনাই চিনিও না আমার সাথে আমার এলাকার মোজাম্মেল হকের সাথে জমিজমা সংক্রান্ত মামলা হয়। আর সেই মামলায় আমরা ডিগ্রীলাভ করি আর তখোন মোজাম্মেল আমাদের হুমকি দেয় তোরা কয়টা মামালায় জিতো দেখবো মোজাম্মেলের বৌয়ের বড়োভাই ৪ নং কোটের পিপি আমার দুই ছেলের বিরুদ্ধে মামলা হয়ছে ৪ নং কোটে। আমি গরীব মানুষ দিন আনি দিন খাই তারা আমার দুই ছেলেকে মিথ্যা মামলায় ফাসিঁয়েছে এ ব্যাপারে মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর বরাবর ডাকযোগে ৪৯৭ প্রাপ্ততি স্বিকার পত্রে বাচাঁর জন্য আবেদন করি। 

Check Also

রাঙ্গাবালীতে করোনা ভাইরাস-জনসচেতনতায় লিফলেট বিতরণ

মাহামুদ হাসান, রাঙ্গাবালী (পটুয়াখালী)প্রতিনিধিঃ পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলায় করোনা-ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব প্রতিরোধে জনসচেতনতায় লিফলেট বিতরণ করা হয় …