Breaking News
Home / সারাদেশ / বরিশাল / পটুয়াখালী / গলাচিপায় সত্তার মিয়া কিডনি রোগে আক্রান্ত, হাসপাতালে কাতরাচ্ছেন

গলাচিপায় সত্তার মিয়া কিডনি রোগে আক্রান্ত, হাসপাতালে কাতরাচ্ছেন

সঞ্জিব দাস, গলাচিপা (পটুয়াখালী)
পটুয়াখালীর গলাচিপায় আব্দুল সত্তার মিয়া (৮০) কিডনি রোগে আক্রান্ত হয়ে গলাচিপা হাসপাতালে কাতরাচ্ছেন। সত্তার মিয়া হচ্ছেন রাঙ্গাবালী উপজেলার বড় বাইশদিয়া ইউনিয়নের হাওলাদার বাড়ির মৃত জবেদ হাওলাদারের ছেলে। দীর্ঘ ২ বছর যাবৎ তিনি এ রোগে আক্রান্ত হয়ে ঢাকা কিডনী হাসপাতাল, মিরপুর হাসপাতাল, বরিশাল শেরে-ই-বাংলা হাসপাতাল, পটুয়াখালী সদর হাসাপাতালে ভর্তি ছিলেন। তার অবস্থা আশংকা জনক দেখে মঙ্গলবার সকালে তাকে গলাচিপা উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। হাসপাতালের কর্মরত ডাক্তার ইমাম সিকদার বলেন সত্তার মিয়ার প্রতিনিয়ত রক্ত দিতে হয় শরীরে। আমার চিকিৎসাধীনে ৩য় তলায় ১৪ নং বেডে ভর্তি আছে। তার অবস্থা বেশি একটা ভালো না। সত্তার মিয়া প্রতিবেদককে বলেন, আমাকে আমার ছেলে নেছার উদ্দিন ও মেয়ে নাজমা , সামিয়া ও মেয়ে জামাই সুলতান আহমেদ বাদশা হাওলাদার আরেক মেয়ে জামাই শহীদ ভূইয়া এরা একত্রিত হয়ে বাংলাদেশের বিভিন্ন হাসপাতালে টাকা পয়সা দিয়ে বাঁচিয়ে রেখেছেন। আল্লাহ্ ওদের মঙ্গল করুক। এ বিষয়ে সত্তার মিয়ার স্ত্রী প্রতিবেদককে জানান, আমার স্বামীর পিছনে ছেলে, মেয়ে ও জামাই প্রায় ৩০ লক্ষ টাকার উপরে খরচ হয়েছে। এ ব্যাপারে নেছার উদ্দ্নি বলেন, আমার বাবাকে বাঁচিয়ে রাখার জন্য আমরা সবাই সবদিক থেকে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। মেয়ের জামাই সুলতান আহমেদ বাদশা বলেন আমার শ্বশুড়কে আমরা সবদিক থেকে সহযোগিতা করে যাব। ঐ ইউনিয়নে ইউপি চেয়ারম্যান আবু আব্দুল্লাহ বলেন, ২ বছর আগে কিডনি রোগে আক্রান্ত হওয়ার পর থেকে নেছার উদ্দিন ও তার বোনেরা তার বাবার পিছনে অনেক টাকা ব্যয় করেছেন। ইউপি সদস্য সোনা মিয়া ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন। ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ এর সভাপতি ফারুক হাওলাদার বলেন, সত্তার মিয়া সোমবার গভীর রাতে অসুস্থ হয়ে পড়লে মঙ্গলবার সকালে তাকে গলাচিপা হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে বলে জানান।

Check Also

রাঙ্গাবালীতে করোনা ভাইরাস-জনসচেতনতায় লিফলেট বিতরণ

মাহামুদ হাসান, রাঙ্গাবালী (পটুয়াখালী)প্রতিনিধিঃ পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলায় করোনা-ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব প্রতিরোধে জনসচেতনতায় লিফলেট বিতরণ করা হয় …