Breaking News
Home / সারাদেশ / বরিশাল / পটুয়াখালী / দশমিনায় তরমুজ বোঝাই কভার্ট ভ্যানের চলাচলে রনগোপালদী সংযোগ সড়ক এখন মরণ ফাঁদ

দশমিনায় তরমুজ বোঝাই কভার্ট ভ্যানের চলাচলে রনগোপালদী সংযোগ সড়ক এখন মরণ ফাঁদ

মোঃ আরিফুর রহমান ঝন্টু, দশমিনা (পটুয়াখালী) সংবাদদাতা
পটুয়াখালীর দশমিনা উপজেলার দশমিনা-টু-রনগোপালদী রাস্তাটি নির্মান শেষে, হস্তান্তরের আগেই তরমুজ বোঝাই কাভার্ট ভ্যানের অত্যাচারে এখন বেহাল হয়ে পরেছে সড়কটি । সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে , গলাচিপার ,চরকাজল,চরশিবা,চরমোন্তাজ সহ দশমিনা উপজেলার চরহাদী,চরবোরহান ও চরশাহজালালে উৎপাদিত তরমুজ,ট্রলার যোগে এসে উপজেলার রনগোপালদী`র `পাতারচর ও আউলিয়াপুর লঞ্চ ঘাট এলাকা থেকে কাভার্ট ভ্যানে তুলে ঢাকা-চিটাগাংসহ চাঁদপুর সহ সারা দেশে বিভিন্ন এলাকায় চালান করা হয়। এলাকাবাসী এবং প্রত্যাক্ষদর্শীরা জানান,একএকটি কাভার্ট ভ্যানে কমপক্ষে ৪হাজার থেকে ৫হাজার পিচ তরমুজ লোড করে থাকে। যার ওজন অন্ততঃ ২৫ হাজার কেজি বা ২৫ টন। অথচ এ পরিমান ওজন বহন করার মত হিসেব করে এ রাস্তাটি নির্মান করা হয় নাই। দশমিনা-গলাচিপা একই সংসদীয় আসন হওয়ায়,এই একটি মাত্র রাস্তা দুই উপজেলার সংযোগ সড়ক হিসেবে দীর্ঘ বছর অক্ষোর প্রহর শেষে মাত্র কয়েক মাস এর নির্মান কাজ শেষ করা হয়। রয়েছে হস্তান্তরের অপেক্ষায়। দুই উপজেলার হাজার হাজার মানুষের নির্বিগ্নে চলা চলের এক মাত্র রাস্তাটি কর্তৃপক্ষের তদারকি এবং ঠিকাদারের অত্যান্ত নিম্মমানের নির্মান সামগ্রী দিয়ে রাস্তাটি নির্মানের ফলে এবং অতিরিক্ত ওজন বহনকারী যানবাহন চলা চলের কারনে, মাত্র কয়েক দিনের ব্যাবধানে এবং কতিপয় অসাধু ব্যাবসায়ীদের নির্বুদ্ধিতার কারনে রাস্তাটির এই বেহাল দশা। ভুক্তভোগী এলাকাবাসীদের দাবী , বর্ষা মৌসুম আসার পুর্বে রাস্তাটি সংস্কার করা না হলে,বর্ষায় তা মরন ফাঁদে পরিনত হবে।

Check Also

রাঙ্গাবালীতে করোনা ভাইরাস-জনসচেতনতায় লিফলেট বিতরণ

মাহামুদ হাসান, রাঙ্গাবালী (পটুয়াখালী)প্রতিনিধিঃ পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলায় করোনা-ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব প্রতিরোধে জনসচেতনতায় লিফলেট বিতরণ করা হয় …