Breaking News
Home / সারাদেশ / খুলনা / সাতক্ষীরা / তালায় উপজেলা প্রশাসনের জন্য নির্মিত ৬টি আবাসিক ভবন ঝুকিপূর্ন

তালায় উপজেলা প্রশাসনের জন্য নির্মিত ৬টি আবাসিক ভবন ঝুকিপূর্ন

এসএম হাসান আলী বাচ্চু,তালা (সাতক্ষীরা) সংবাদদাতা:
তালা উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাদের জন্য তৈরীকৃত ৬ আবাসিক ভবনের অবস্থা খুবই জরাজীর্ণ। যে কোন সময় ভবন গুলো ধ্বসে পরতে পারে। দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি সচেতন নাগরিক সমাজের।

জানাযায়,তৎকালীন সরকারের রাষ্ট্রপতি এরশাদ সাহেব ১৯৮৩ সালে প্রতিমন্ত্রী সৈয়দ দিদার বখ্তের মাধ্যমে উপজেলার সকল দাপ্তরিক ভবন গুলো স্থাপিত করেন। এর মধ্যে রয়েছে দাপ্তরিক কর্মকর্তাদের বসবাসের জন্য দ্বিতলা বিশিষ্ঠ ৬টি আবাসিক ভবন। যেখানে ২৪টি পরিবার বসবাস করতে পারবে। ২০০০ সালের পর থেকে তালায় সৃষ্টি হয় জলবদ্ধতা । আর বছরের প্রায় ৬ মাস পানিতে তলিয়ে থাকতো উপজেলা চত্ত্বর সহ আশ পাশের এলাকা। ফলে দীর্ঘ দিন পানির তলে তলিয়ে থাকার কারনে উপজেলা পরিষদের বিভিন্ন দাপ্তরিক ভবন ও আবাসিক ভবনগুলো হয়ে পড়েছে বসবাসের অনুপযোগী ও ধ্বসে পরার আংশকায় ।

সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়,বর্তমানে ভবন গুলো একেবারে ঝুঁকিপূর্ণ থাকার সত্বেও ৫টি পরিবার ঝুকি নিয়ে বসবাস করছে ঐ ভবনে। তবে বসবাস যোগ্য না থাকায় আসেনা রেভিনিউ। আর অর্থ সংকটে থাকায় নির্মিত হচ্ছে না এসব ভবনগুলো। যত দিন যাচ্ছে ততই বাড়ছে ঝুঁকির মাত্রা।রেহায় পায়নি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার বাস ভবনটিও।উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার ভবনটিও আছে জরাজীর্ণ অবস্থায় ঝুকি নিয়ে বসবাস করছেন তিনিও। সরকারি ভাবে পদক্ষেপ না নিলে ঘটে যেতে পারে বড় ধরনের দূর্ঘটনা। যে কোন মুহুর্ত্বে ভবন ধ্বসের আতংকে রয়েছেন বসবাসরত ভুক্তভোগী পরিবারের সদস্য সহ উপজেলা প্রশাসন। তবে তালার সচেতন নাগরিকের ধারনা প্রশাসনের গড়িমশিতে ভবন গুলোর এমন দশা।

বসবাসরত কয়েকটি দপ্তরের কর্মকর্তাদের সাথে কথা হলে তারা জানান,ভবনগুলি একেবারে বিধ্বস্ত হয়ে পড়েছে। যে কোন মুহুর্ত্বে ধ্বসে পড়তে পারে। বাহিরে সুবিধাজনক জায়গা না পাওয়ায় স্ত্রী সন্তানদের নিয়ে ঝুঁ^কি অবস্থায় বসবাস করতে হচ্ছে। তবে প্রশাসনিক কর্মকর্তারা লিখিত ভাবে না জানালেও মৌখিক ভাবে পরিত্যক্ত ঘোষনার কথা জানিয়েছেন।

তালা উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাজিয়া আফরীন জানান, ভবনগুলো ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় আছে এবং কয়েকটি পরিবার ঝুকি নিয়ে বসবাস করছে। দ্রুত মিটিং ডেকে পরিত্যক্ত ঘোষনা করা হবে এবং ভবনগুলো সংস্কারে ব্যবস্থা নেওয়া হবে ।

তালা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ঘোষ সনৎ কুমার জানান,জলাবদ্ধতার কারনে উপজেলা পরিষদের সকল দাপ্তরিক ভবনসহ আবাসিক ভবনের বর্তমানে জরাজীর্ণ অবস্থা। মৌখিক ভাবে পরিত্যক্ত ঘোষনা করা হয়েছে। জেলা সমন্বয় সভায় উপজেলা পরিষদের অবকাঠামো উন্নয়নের বিষয় কয়েকবার আলোচনা হয়েছে।তবে উপজেলা পরিষদের অবকাঠামো উন্নয়নে বিষয়টি জরুরী হয়ে পড়েছে।

Check Also

রাঙ্গাবালীতে করোনা ভাইরাস-জনসচেতনতায় লিফলেট বিতরণ

মাহামুদ হাসান, রাঙ্গাবালী (পটুয়াখালী)প্রতিনিধিঃ পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলায় করোনা-ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব প্রতিরোধে জনসচেতনতায় লিফলেট বিতরণ করা হয় …